দাবানলে পুড়ছে যুক্তরাষ্ট্র

দাবানলে বিপর্যস্ত যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিমাঞ্চল। শত শত ঘর-বাড়ি পুড়ে গেছে দাবানলে এবং নিহত হয়েছেন অনন্ত ১৬ জন। ক্যালিফোর্নিয়ায় এ পর্যন্ত আগুনে দগ্ধ হয়ে ১১ জন মারা গেছেন এবং ওরেগনে চার জনসহ ওয়াশিংটনে ১ বছর বয়সী এক শিশুর মৃত্যু হয়। তবে মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছে উদ্ধারকর্মীরা।

দাবানলে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে ৪ লাখ ৭০ হাজার একর ভূমির গাছপালা। দাবানল ছড়িয়ে পড়ায় প্রায় ৫ লাখ লোককে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

শুক্রবার (১১ সেপ্টেম্বর) পোর্টল্যান্ড ও ওরেগন অঙ্গরাজ্যের বাসিন্দারা ধোঁয়ার দূষণে ঢেকে যাওয়া সূর্য আর রক্তবর্ণ ধারণ করা আকাশ দেখে জেগে ওঠে। ওরেগনের সবচেয়ে জনবহুল এলাকার কাছে চলে আসা বড় দুটি আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালাচ্ছে নির্বাপণ কর্মীরা। অঙ্গরাজ্যটির গভর্নর জানিয়েছেন, সেখানকার বহু মানুষ নিখোঁজ রয়েছেন। 

ওরেগনের জরুরি ব্যবস্থাপনা বিভাগের পরিচালক অ্যান্ডু ফেল্পস জানিয়েছেন, কর্মকর্তা ব্যাপক হতাহতের ঘটনা মোকাবিলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। আর দাবানলে ইতোমধ্যে হাজার হাজার অবকাঠামো ধ্বংস হয়েছে। ওরেগনের গভর্নর কেট ব্রাউন জানিয়েছেন, অঙ্গরাজ্যের ৪০ হাজার বাসিন্দাকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে এবং আরও প্রায় পাঁচ লাখ মানুষকে সরিয়ে নিতে হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিমাঞ্চলীয় অঙ্গরাজ্য ক্যালিফোর্নিয়া, ওরেগন এবং ওয়াশিংটনের বিভিন্ন দাবানলে ইতোমধ্যে রেকর্ড সংখ্যক এলাকা পুড়ে গেছে। অগ্নি জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন পোর্টল্যান্ডের মেয়র টেড হুইলার। এর ফলে আশ্রয় কেন্দ্র খোলাসহ গৃহহীন মানুষদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নিতে পারবেন তিনি। বন্ধ করে দিতে পারবেন শহরের বিখ্যাত ফরেস্ট পার্ক।

এ ছাড়া অঙ্গরাজ্যগুলোর কর্তৃপক্ষকে ব্যাপক ভুল তথ্য ছড়ানোর বিরুদ্ধেও লড়তে হচ্ছে। সংঘবদ্ধ গ্রুপ আগুন ছড়াচ্ছে বলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব ছড়াচ্ছে। তবে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই জানিয়েছে, এ ধরনের বেশ কয়েকটি দাবি তদন্ত করে দেখেও কোনো সত্যতা পাওয়া যায়নি।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author