বাজারে বাড়তি চাল ও পেঁয়াজের দাম

করোনা পরিস্থিতি আর বন্যার কারণে চাল ও পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। কোনোভাবেই বাগে আসছে না চালের বাজার। দু’তিন দিনের ব্যবধানে দাম বেড়েছে কেজিতে ৫/৭ টাকা। মিলাররা বলছেন, করোনাকে পূঁজি করে অতিরিক্ত মুনাফা লুটছে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। করোনা আতঙ্কে চালসহ নিত্যপণ্য কিনতে বাজারে হুমড়ি খাচ্ছে ভোক্তারা। আর এ সুযোগে তৎপর ব্যবসায়ীরা। অস্বাভাবিক হারে বাড়িয়েছে চালের দাম। রাজধানীর পাইকারি মোকাম বাবুবাজারেই চালের কেজি ছাড়িয়েছে ৫৫ টাকার ঘর।

গত সপ্তাহে ৪৫ টাকায় বিক্রি হওয়া পেঁয়াজের দাম এখন ৬০ থেকে ৬৫ টাকা। নানা অজুহাতে বেড়ে যাওয়া নিত্যপণ্যের দাম এখনো কমেনি। বিক্রেতারা বলছেন, তারা কিনছেন বেশি দামে। ভারতের কয়েকটি রাজ্যে পেয়াজের দাম গত দু’সপ্তাহ আগে কিছুটা বেড়ে যায়। সেই হুজুগ তুলে বাংলাদেশের পাইকারি বাজারেও পেয়াজের দাম বাড়িয়ে দেয়া হয়। যা খুচরা বাজারে এসে ছাড়িয়ে যায় সাধারণের ক্রয়সীমা।

সবজির বাজারও লাগামহীন। রাজধানীর কাঁচাবাজারগুলো দিন দিন হয়ে উঠছে অল্প আয়ের মানুষের হতাশার জায়গা। সব সবজির দাম চড়া। বন্যার কারণে বেড়ে যাওয়া সবজির দাম এখনো কমেনি। নামেনি কাচা মরিচের দামও। কাঁচা মরিচ এখনো ২০০ টাকার ওপরে। খুচরা বিক্রেতাদের আশা কিছুদিনের মধ্যে দাম কমে আসবে। দেশি ডিমের হালি ৬০ টাকা। পোল্ট্রি মুরগীর ডিমের দাম ডজন প্রতি ১০০ থেকে ১১০ টাকার মধ্যে।

তবে গরু ও খাসির মাংসের দাম আগের মতোই। রাজধানীর বাজারগুলোতে হঠাৎ এমন পরিস্থিতিতে বিপাকে ক্রেতারা। আর সিন্ডিকেটের কারণে চালের দাম বেড়েছে বলে অভিযোগ বিক্রেতাদের।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author