সুশান্তের সাবেক প্রেমিকা রিয়া গ্রেপ্তার

বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ঘটনায় তার সাবেক প্রেমিকা অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী গ্রেপ্তার।

এর আগে, রবিবার মুম্বাইয়ের স্থানীয় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন রিয়াকে। রবি, সোম পর পর দু’দিন জেরার পর, আজ মঙ্গলবারও ডাকা হয় রিয়াকে।  কিছু ক্ষণ জেরার পরই দুপুরে রিয়াকে গ্রেপ্তার করে এনসিবি। আজ বিকেল সাড়ে ৪টে নাগাদ তাঁর ডাক্তারি পরীক্ষা হবে।

এদিকে, সুশান্তের মৃত্যু মামলার তদন্তে গ্রেপ্তার হয়েছেন রিয়া
চক্রবর্তীর ভাই শৌভিক চক্রবর্তী। আরও গ্রেপ্তার করা হয়েছে সুশান্তের বাড়ির
ম্যানেজার স্যামুয়েল মিরান্ডাকে। ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ সংস্থা
নার্কোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি) তাদের গ্রেপ্তার করে।

সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার শ্রুতি মোদি জানিয়েছেন, সুশান্তকে ওষুধ দিয়ে অচেতন করে রেখে, তাঁর সই জাল করে অ্যাকাউন্ট থেকে অর্থ সরিয়েছেন রিয়া চক্রবর্তী। ভারতের আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) জেরার মুখে এই তথ্য জানান তিনি। এখানেই শেষ নয়, রিয়ার বিরুদ্ধে তিনি রাজসাক্ষী হতেও রাজি হয়েছেন বলে জানা গেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে।

জি-নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, শ্রুতি মোদি ইডির জেরায় জানিয়েছেন,
সুশান্তকে প্রায় তিন মাস ওষুধ দিয়ে অচেতন করে রেখেছিলেন রিয়া। সেসময়ই
সুশান্তের সই নকল করে তাঁর অ্যাকাউন্ট থেকে বড় অঙ্কের অর্থ সরিয়ে নেন
তিনি। 

এরই মাঝে সোশ্যাল মিডিয়ায় ওঠে এসেছে সুশান্তের প্যানকার্ডসহ কম্পানি বেশ
কিছু কাগজপত্র। পুরনো কাগজপত্রে থাকা সুশান্তের সইয়ের সঙ্গে তাঁর
সাম্প্রতিক কালের বেশকিছু সই মিলছে না বলে দাবি করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে অর্থ সরানোর অভিযোগ এনেছেন সুশান্তের বাবা কে কে সিং রাজপুত। তাঁর সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই তদন্ত করছে ইডি। এখন পুরো বিষয়টিই ইডির তদন্তাধীন রয়েছে। তবে সুশান্ত মৃত্যুর ঘটনায় সিবিআই, মুম্বাই পুলিশ, নাকি বিহার পুলিশকে তদন্ত করবে তা সুপ্রিম কোর্টের রায়ের ওপর নির্ভর করছে।

গত ১৪ জুন মুম্বইয়ের বান্দ্রার বাড়ি থেকে সুশান্ত সিংহ রাজপুতের ঝুলন্ত
দেহ উদ্ধার হয়। শুরুতে মুম্বই পুলিশের হাতেই তদন্তভার ছিল। পরে সুপ্রিম
কোর্টের নির্দেশে তা কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআইয়ের হাতে ওঠে। সেই
মামলায় রিয়ার হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট থেকে মাদকযোগের কথা উঠে এলে, আলাদা করে
তদন্ত শুরু করে এনসিবি।

সূত্র: জি-নিউজ।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author