বাজারে বাড়তি চাল ও পেঁয়াজের দাম

আচমকা অস্থির হয়ে উঠেছে নিত্যপণ্যের বাজার। সবচেয়ে বেশি বেড়েছে চাল ও পেয়াজের দাম। ৫০ কেজির প্রতি বস্তা চালের দাম বেড়েছে দুই থেকে আড়াইশ টাকা আর পেয়াজের দাম কেজিতে ১০ থেকে ১২ টাকা। সরকারি প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে।

বাজারের এমন উর্ধ্বগতির জন্য ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটকে দায়ী করছেন পাইকারি ও খুচরা ব্যবসায়ীরা। বাজার নিয়ন্ত্রণে সার্বক্ষণিক তদারকির দাবি জানিয়েছেনব্যবসায়ী ও ভোক্তারা। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পেঁয়াজ ছাড়াও আরও নিত্যপ্রয়োজনীয় পাঁচটি পণ্য মসুর ডাল, আলু, রসুন, আদা ও ব্রয়লার মুরগির দাম বেড়েছে। বিপরীতে মোটা চাল, আটা, জিরা, দারুচিনি, এলাচ, ধনে ও তেজপাতা এই সাতটি পণ্যের দাম কমেছে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

টিসিবির তথ্যানুযায়ী, গত এক সপ্তাহে সব থেকে বেশি দাম বেড়েছে আমদানি করা পেঁয়াজের। পণ্যটির দাম এক লাফে ৩৮ দশমিক ৪৬ শতাংশ বেড়ে কেজি ৪০ থেকে ৫০ টাকা বিক্রি হচ্ছে, যা আগে ছিল ৩০ থেকে ৩৫ টাকা। বড় অঙ্কের দাম বেড়েছে দেশি পেঁয়াজেরও। ২৯ দশমিক ৪১ শতাংশ বেড়ে দেশি পেঁয়াজের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা।

এদিকে রসুনের দামও হু হু করে বাড়ছে। সপ্তাহের ব্যবধানে দেশে রসুনের দাম ২৯ দশমিক ৪১ শতাংশ বেড়েছে। এতে পণ্যটির কেজি বিক্রি হচ্ছে ১০০ থেকে ১২০ টাকা। আর আমদানি করা রসুনের দাম ৩ দশমিক ৪৫ শতাংশ বেড়ে কেজি ৭০ থেকে ৮০ টাকা হয়েছে।

আমদানি করা আদার দাম ১৮ দশমিক ৪২ শতাংশ বেড়ে কেজি ২০০ থেকে ২৫০ টাকা হয়েছে। আলুর কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা। এতে সপ্তাহের ব্যবধানে পণ্যটির দাম বেড়েছে ৭ দশমিক ১৪ শতাংশ। ৮ দশমিক ৭০ শতাংশ দাম বেড়ে ব্রয়লার মুরগির কেজি ১২০ থেকে ১৩০ টাকা হয়েছে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author