জুম তোলায় ব্যস্ত পাহাড়িরা

শরতে জুমের ফসল তোলায় ব্যস্ত পাহাড়ি জুমিয়ারা। কিছু ফসল সারা বছর ধরে তোলা হলেও জুমের ধান তোলার এখনই মৌসুম। তাই খাগড়াছড়ি, রাঙামাটি ও বান্দরবানে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির ঘরে ঘরে নবান্ন উৎসবের আমেজ। এদিকে, পরীক্ষামূলকভাবে সার ও কীটনাশকের মাধ্যমে স্থায়িত্বশীল এবং অধিক উৎপাদনশীল জুমধান চাষ করে লাভবান হয়েছেন কিছু জুমিয়া।

পার্বত্য চট্টগ্রামের পাহাড়ি জনগোষ্ঠীর ঐতিহ্যবাহী চাষবাষ পদ্ধতি ‘জুমচাষ’। এখনও প্রান্তিক পাহাড়ি জুমিয়ারা ঐতিহ্যগতভাবে জুমচাষ নির্ভর জীবনধারণ করে। এদিকে পরীক্ষামূলকভাবে পরিবর্তে প্রথমবারের মতো সার ও কীটনাশকের মাধ্যমে স্থায়িত্বশীল এবং অধিক উৎপাদনশীল চায় করা হয় জুম।

 

জুম চাষের আধুনিক পদ্ধতি পাল্টে দিয়েছে চাষাবাদের ধরন। এখন ধান কাটা ও ঘরে তোলায় ব্যস্ত চাষিরা। গত চার বছর ধরে চলা গবেষণায় বৈজ্ঞানিক ও কৃষিবিদরা খাগড়াছড়ি-বান্দরবানে সফলতার মুখ দেখেছেন। উদ্বুদ্ধ জুম কৃষকরাও।

এই পদ্ধতিতে প্রতি বছর একই জমিতে বারবার ফসল উৎপাদন সম্ভব বলে মনে করছে কৃষি ফাউন্ডেশন।

চলতি বছর পার্বত্য তিন জেলায় প্রায় ১৩ হাজার হেক্টর জমিতে জুম ফসলের চাষাবাদ হয়েছে বলে জানায় কৃষি বিভাগ।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment