বঙ্গবন্ধুকে নির্দিষ্ট গণ্ডিতে আবদ্ধ না রাখার আহবান

মাইনুল হোসেন পিন্নু: আনোয়ার হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সর্বোচ্চ ডিগ্রি অর্জকারী। শিক্ষকতা জীবন শেষে এখন অবসর জীবনে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে এখনও আবেগ ধরে রাখতে পারেন না। চোখের কোণে জমে থাকা অশ্রুবিন্দুতে ব্যক্ত করলেন নিজের কষ্ট ও ক্ষোভ। তার মতোই দেশের নবীন ও প্রবীণ নাগরিকরা চান বইয়ের পাতা, বক্তব্য কিংবা বিবৃতিতে নয় বঙ্গবন্ধুর আদর্শ পুরোপুরি বাস্তবায়ন দেখতে চান। গোষ্ঠী বা দলের মধ্যে মহান এ নেতাকে আবদ্ধ না রেখে সার্বজনীন করার দাবিও তাদের। আর এ কাজে দায়িত্ব নিতে হবে আওয়ামী লীগকেই। শোকের মাসে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে মোহনাকে এমন মত দেন বিভিন্ন পেশায় জড়িতরা।

আনোয়ার হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সর্বোচ্চ ডিগ্রি অর্জকারী। শিক্ষকতা জীবন শেষে এখন অবসর জীবনে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে এখনও আবেগ ধরে রাখতে পারেন না। চোখের কোণে জমে থাকা অশ্রুবিন্দুতে ব্যক্ত করলেন নিজের কষ্ট ও ক্ষোভ। তার মতোই দেশের নবীন ও প্রবীণ নাগরিকরা চান বইয়ের পাতা, বক্তব্য কিংবা বিবৃতিতে নয় বঙ্গবন্ধুর আদর্শ পুরোপুরি বাস্তবায়ন দেখতে চান। গোষ্ঠী বা দলের মধ্যে মহান এ নেতাকে আবদ্ধ না রেখে সার্বজনীন করার দাবিও তাদের। আর এ কাজে দায়িত্ব নিতে হবে আওয়ামী লীগকেই। শোকের মাসে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে মোহনাকে এমন মত দেন বিভিন্ন পেশায় জড়িতরা।

আরও দেখুন https://www.facebook.com/mohonapage/videos/332962747891611/

আনোয়ার হোসেনের বক্তব্য এমন- যে নেতার অঙ্গুলের ইশারায় সাতকোটি মানুষ ঝাঁপিয়ে পড়েছিলো তাকিই বাঁচাতে পারেনি বাঙ্গালী জাতি। অথয বঙ্গবন্ধুর জন্যেই স্বাধীন ভূমি আর লাল-সবুজ পতাকা অর্জন। তার দুঃখ, বঙ্গবন্ধুর আওয়ামী লীগ এখন আর নেই, বড় অভাব চরিত্রবান রাজনীতিবিদের। আদর্শ আর সঠিক নেতৃত্ব তৈরিতে আওয়ামী লীগে শুদ্ধি অভিযান দরকার বলেও মনে করেন এক সময়ের ছাত্রীলীগের এ কর্মী। জীবনের শেষ সময়ে এসে কেন দলের প্রতি এতো ক্ষোভ আওয়ামী লীগের এ কর্মী আনোয়ার হোসেনের, সাফ মত দল ক্ষমতায় গেলেই সে দলের এক শ্রেণির নেতাকর্মী রাতারাতি অঢেল সম্পদের মালিক বনে যাচ্ছেন। তার প্রশ্ন আলাদিনের চেরাগ কেবল দল ক্ষমতায় গেলে কেন।

স্বাধীনতার স্থপতির জন্য কিছু করতে না পারার আক্ষেপ নিয়ে বেড়াচ্ছেন অনেক প্রবীণ।  জীবদ্দশায় বঙ্গবন্ধুসহ তার পরিবারের সদস্যদের  খুনিদের ফাঁসির আদেশ কার্যকর দেখে যেতে চান তারা।

বিদেশে পলাত বঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনার জন্য সংশ্লিষ্টদের আরও তৎপর হ্য়ার আহবানও জানান তারা।

আর সাধারণ মানুষের অধিকার আদায়, তৃণমূলের উন্নয়ন নিশ্চিত, শ্রেণিবৈষম্য আর দুর্নীতির বিরুদ্ধে আজন্ম লড়েছেন বঙ্গবন্ধু। তাই নবীনদের চাওয়া, প্রতিটি স্তরে জাতির পিতার আদর্শ বাস্তবায়ন।

বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারন করে দূণীর্তিমুক্ত দেশ গঠন করতে হবে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের। বঙ্গবন্ধুর আওয়ামী লীগের অনেক নেতা টাকার কাছে জীম্মী হয়ে পড়েছে বলেও মত নবীন-প্রবিনদের।

সে ধারা থেকে বের হয়ে আসার আহবানও জানান বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। জাতির পিতার একজন খুনিও যাতে রক্ষা না পায়, সে নিয়ে পররাষ্ট মন্ত্রণালয়কে আরও  তৎপর হওয়ার পরামর্শ দেন তারা। ভূমিকা রাখতে হবে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author