বর্জ্য অপসারণের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন

রাজধানীতে ঘোষিত ঈদের প্রথম দিন দেয়া ২৪ ঘন্টার মধ্যে কোরনানির বর্জ্য অপসারণের ঘোষণা বাস্তবায়ন করতে সক্ষম হয়েছে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন। পরিচ্ছন্ন কর্মীদের সার্বিক কর্মকান্ডে সন্তোষ জানিয়েছেন নগরবাসী।

ঘোষিত ২৪ ঘন্টা সময়ের আগেই ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন এলাকায় কোরবানির প্রথম দিনের সব বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন করপোরেশনের প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা।

উত্তর ও দক্ষিণ সিটির বিভিন্ন সড়ক ঘুরে এ তথ্যের সত্যতাও মিলেছে। কোথাও কোরবানির বর্জ্য পড়ে থাকতে তেমন একটা দেখা যায়নি। বর্জ্য অপসারণে উত্তরের ৫৪টি ওয়ার্ডে কাজ করছে ১১ হাজারের বেশি পরিচ্ছন্নতা কর্মী।

এছাড়া ভারী ও হালকা মিলিয়ে ৪৩০টি যানবাহন ব্যবহার করছে উত্তর সিটি করপোরেশন। পাশাপাশি ৫১ টন ব্লিচিং পাউডার ও ৫ লিটার ধারণক্ষমতার ৯৬০ ক্যান তরল জীবাণুনাশক ছিটাতে ব্যবহার করা হচ্ছে ১১টি পানির গাড়ি।

উত্তরের প্রধান সড়কসহ অলিগলি পরিচ্ছন্ন থাকলেও দক্ষিনের কিছু অলিগলিতে বর্জ্য পড়ে থাকতে দেখা গেছে। যত্রতত্র না রেখে নির্ধারিত স্থানে আবর্জনা রাখতে নগরবাসীর প্রতি আহবান জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

২৪ ঘন্টায় বর্জ্য অপসারণ। ঈদের প্রথম
দিন নিজেদের ছুড়ে দেয়া এমন চ্যালেঞ্জ বাস্তবায়ন করতে সক্ষম হয়েছে ঢাকার দুই সিটি
কর্পোরেশন। উত্তর সিটিতে পরিচ্ছন্ন কর্মীদের কর্মকাণ্ডে সন্তোষ জানিয়ে এ ধারা
অব্যাহত রাখার দাবী জানিয়েছেন সাধারণ মানুষ।

নগরীকে শতভাগ বর্জ্যমুক্ত করতে সহযোগিতার
জন্য বসবাসকারীদের ধন্যবাদ দিলেন কমোডোর এম সাইদুর রহমান।

বর্জ্য অপসারনে কন্ট্রোলরুম থেকে তদারকি
করছেন দক্ষিণ সিটির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। নতুন সব আবর্জনা ২৪ ঘন্টার মধ্যেই
অপসারনের আশ্বাস দিয়েছেন প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপক কমোডোর বদরুল আমিন।

নির্দিষ্টস্থানে ময়লা ফেলে সিটি কর্পোরেশনকে সহযোগিতা করতে নগরবাসীকে অনুরোধ জানিয়েছেন এই কর্মকর্তা।

শনিবার (১ আগস্ট) দক্ষিণ সিটির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপক এয়ার কমোডর বদরুল
আমিন আশা প্রকাশ করে বলেছিলেন, ঈদের পরদিন সকাল ১১টার মধ্যে প্রথম দিনের
শতভাগ বর্জ্য অপসারণ সম্ভব হবে। আর দুই সিটি মেয়র আতিকুল ইসলাম ও শেখ ফজলে
নূর তাপস জানিয়েছিলেন ২৪ ঘন্টার মধ্যেই সকল বর্জ্য অপসারণ হয়ে যাবে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author