কুমিল্লায় বিদ্যুৎ বিলে অতিষ্ঠ গ্রাহক

কুমিল্লায় বিদ্যুৎঅদ্ভুত বিলে অতিষ্ঠ গ্রাহকরা। অভিযোগ উঠেছে মিটার না দেখে মনগড়া বিল তৈরি করছে কর্তৃপক্ষ। এনিয়ে বিদ্যুৎ অফিসে গিয়েও মিলছেনা প্রতিকার। উল্টো এক টেবিল থেকে অন্য টেবিলে ঘুরে বাড়ছে হয়রানি। অবশ্য  কর্তৃপক্ষ বলছে করোনা পরিস্থিতিতে সরজমিনে না যেতে পারায় বিলে গরমিল হচ্ছে।

করোনার মহামারিতে কর্মহীন কুমিল্লার বেশিরভাগ শ্রমজিবী। একই অবস্থা অন্য পেশার মানুষেরও। এরমধ্যে বিদুৎতের অস্বাভাবিক বিলের অভিযোগ উঠেছে। এনিয়ে দূর্ভোগের পাশাপাশ ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।  মিটার না দেখে মনগড়া বিল করার অভিযোগও করলেন গ্রাহকরা। বিদ্যুৎ অফিসে অভিযোগ নিয়ে যাওয়ার পরও প্রতিকার মিলছে না। এক টেবিল থেকে অন্য টেবিলে ঘোরাঘুরি করছে বিল। আর দু:চিন্তা বাড়ছে গ্রাহকদের।

একবার পরিশোধ করার পরও নতুন বিলের সঙ্গে সংযুক্ত করা হয় আগের বিল-এমন অভিযোগও করলেন স্থানীয়রা।

করোনার পরিস্থিতিতে একেতো কর্মহীন, অন্যদিকে বাড়তি বিল নিয়ে দারূন বিপাকে
পড়েছেন  বিদ্যুৎ গ্রাহকরা।

লকডাউনের কারণে অনেক এলাকায় সরজমিনে গিয়ে মিটারের রিডিং দেখতে পারছে না কর্মীরা। এ কারণে বিলে গরমিল হতে পারে বলে জানান কুমিল্লা বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শাহ্ রেওয়াজ মিঞা।

হয়রানি বন্ধ করে মিটার রিডিং
দেখেই সঠিক বিল তৈরির দাবী জানালেন গ্রাহকরা।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author