ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে
করোনা শনাক্তে নমুনা সংগ্রহে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব। বুথের
সামনে জটলা বেধে অবস্থান করেন নমুনা দিত আসা মানুষ। এতে করোনা সংক্রমণ
ঝুঁকি বাড়ছে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। আর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক
জানিয়েছেন সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে চেষ্টা চালিয়েও ঠেকাতে পারছে না।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ক্রমেই বাড়ছে করোনা সংক্রমন। মঙ্গলবার (৩০ জুন) পর্যন্ত জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৯ শতাধিক। আর মারা গেছেন ১১জন। উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে আরো ১৬জন। সংক্রমন বেড়ে যাওয়ায় বাড়ছে নমুনা পরীক্ষার হার।

করোনা শনাক্তে জেলা সদর হাসপাতালে প্রতিদিন ৫০ জনের নমুনা সংগ্রহের টার্গেট কর্তৃপক্ষের। অথচ সংগ্রহ করা হচ্ছে তার চেয়ে বেশি। আক্রান্ত শনাক্ত করতে জেলা সদর হাসপাতালের পাশাপাশি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও  সংগ্রহ করা হচ্ছে নমুনা।

কিন্তু সামাজিক দূরত্বের কোনো
বালাই নেই নমুনা সংগ্রহ বুথের সামনে। এতে আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শে এসে সুস্থরাও
সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছেন।

রিপোর্ট পেতে দেরি হওয়ায়
উপসর্গ থাকলেও অনেকে অবাধে চলাফেরা করছেন। এতে সংক্রমন ঝুঁকি বাড়ছে বলে
মনে করেন সচেতন মহল।

তবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের
তত্বাবধায়ক ডাক্তার শওকত হোসেন বললেন এ ক্ষেত্রে সাধারণের সচেতনতার বিকল্প নেই।

নিরাপদ দুরুত্ব বজায় রেখে
নমুনা সংগ্রহ নিশ্চিতের পাশাপাশি দ্রুত রিপোর্ট দেয়ার দাবি জানালেন জেলাবাসী।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author