সিউলের বিরুদ্ধে সামরিক ব্যবস্থার পরিকল্পনা স্থগিত

সাউথ কোরিয়ার বিরুদ্ধে সামরিক পদক্ষেপের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছ নর্থ কোরিয়া। দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা কেসিএনএ জানায়, মঙ্গলবার কিম জং উনের সভাপতিত্বে ক্ষমতাসীন দলের এক বৈঠক শেষে এ ঘোষণা দেয়া হয়। পরদিন কেসিএনএর বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

পরিস্থিতি বিবেচনায় এ সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা জানিয়েছে দেশটির সেন্ট্রাল মিলিটারি কমিশন। পাশাপাশি যোগাযোগের জন্য দু’দেশের সীমান্তে আবারও লিয়াজোঁ অফিস ও ফোন সংযোগ চালু করা হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেছে পিয়ংইয়ং।

পরিকল্পনা স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে কমিটির সদস্যরা ‘বিদ্যমান পরিস্থিতি’ পর্যবেক্ষণ করেন। তবে এই ‘বিদ্যমান পরিস্থিতি’র কোনও ব্যাখ্যা পাওয়া যায়নি সংবাদ মাধ্যমে। বছরের পর বছর ধরে পক্ষত্যাগ করে দক্ষিণ কোরিয়ায় চলে যাওয়া উত্তর কোরীয় নাগরিক ও দক্ষিণের অ্যাক্টিভিস্টরা উত্তরের শাসন ব্যবস্থা ও এর নেতাদের সমালোচনা করে বেলুনের মাধ্যমে বার্তা পাঠিয়ে আসছে। সম্প্রতি এ নিয়ে উত্তেজনার জেরে দক্ষিণের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করেন উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উন। তার বোন কিম ইয়ো জং প্রকাশ্যেই দক্ষিণ কোরিয়াকে শত্রু হিসেবে আখ্যায়িত করেন।

উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়া নিজেদের মধ্যে সমন্বয় করে কাজ চালাতে স্থাপন করা যৌথ লিয়াজোঁ অফিসও গুঁড়িয়ে দেয় উত্তর কোরিয়া। তবে মঙ্গলবারের বৈঠকের পর সামরিক ব্যবস্থা নেয়ার পরিকল্পনা থেকে সরে আসে পিয়ংইয়ং। গত সপ্তাহে হঠাৎ করেই সিউল-পিয়ংইয়ং সম্পর্কে চিড় ধরে। এরপরই সামরিক পদক্ষেপ নেয়ার ঘোষণা দেন কিম।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author