ভাগ্য বদলে কোয়েল পাখি

কোয়েল পাখি পালন করে স্বাবলম্বী হয়েছেন নরসিংদীর আনোয়ারা খাতুন ডলি। তার সাফল্যে অণুপ্রাণিত হয়ে এলাকার অনেকেই বেছে নিয়েছেন এ পেশা। প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ ও ব্যাংকঋণ পেলে কোয়েল পালন করে এলাকার অর্থনৈতিক চিত্র পাল্টে দেয়া সম্ভব বলে মনে করেন তারা।

নরসিংদীর পলাশ এলাকার আনোয়ারা খাতুন ডলি; ২০ বছর আগে এক’শ কোয়েল পাখি দিয়ে শুরু করেন খামার। বর্তমানে তার খামারে আছে প্রায় পঞ্চাশ হাজার পাখি। তার সফলতা দেখে অনেকেই এখন ঝুঁকছেন কোয়েল পালনে। রোগবালাই ও খরচ কম হওয়ায় যেকোন পরিবেশে এ পাখি পালন সম্ভব। একটি কোয়েল বছরে ২৬০ টি পর্যন্ত ডিম দিয়ে থাকে।  

কোয়েল পাখির মাংস ও ডিম মানবদেহের
জন্য উপকারী। প্রতিদিন বিভিন্ন এলাকা থেকে তার খামারে আসেন অসংখ্য ক্রেতা। ডলির খামারে কাজ করে অভাবের সংসারে হাসি ফুটিয়েছেন অনেকেই। খামারের উন্নয়নে নানা পরামর্শ দিচ্ছে প্রাণিসম্পদ অফিস। লাভজনক হওয়ায় বর্তমানে দেশে ছোটবড়
প্রায় পঞ্চাশ হাজার কোয়েল খামার গড়ে উঠেছে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author