কিশোরগঞ্জে নির্মাণের দুবছরের মাথায় এলজিইডির সড়কে ধস

কিশোরগঞ্জে এলজিইডির ছয় কোটি টাকার একটি রাস্তা, নির্মাণের দুই বছরের মাথায় স্থানে স্থানে ধসে গেছে। পরিকল্পনায় দুর্বলতা ও কাজের নিম্নমান-এ বিপর্যয়ের কারণ বলে অভিযোগ উঠেছে। ধসে যাওয়ার পর, সড়ক রক্ষায় এখন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে প্রতিরক্ষা দেয়াল নির্মাণের। স্থানীয়রা বলছেন, প্রতিরক্ষা প্রকল্পটি শুরুতে নেয়া হলে বিপর্যয়ের মুখে পড়তো না সড়কটি।

নদীর পাড় দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করতে
হলে শুরুতে ভাবতে হয় এর স্থায়িত্ব নিয়ে। কিন্তু প্রকল্পে প্রতিরক্ষা দেয়ালের
বরাদ্দ না রেখে প্রায় ছয় কোটি টাকা ব্যয় ধরে ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে শুরু হয় রাস্তা
নির্মাণের কাজ। কিশোরগঞ্জ সদরের রঘুখালি থেকে নীলগঞ্জ পর্যন্ত ছয় কিলোমিটার
রাস্তার কাজ শেষ হয় ২০১৭ সালে। তবে দু’বছর যেতে না
যেতেই ধসে পড়ে সড়কের বিভিন্ন অংশ। কোথাও রাস্তার অর্ধেক বা তারও বেশি ধসে গেছে।
ফলে সড়কটি তেমন একটা কাজে আসছে না এলাকাবাসীর। বরং ধসে যাওয়া এলাকাগুলোতে প্রায়ই
ঘটছে দুর্ঘটনা।

তিন কিলোমিটার প্রতিরক্ষা কাজের জন্য
বরাদ্দ দেয়া হয় প্রায় আড়াই কোটি টাকা। কাজ শুরু হলেও প্রকল্পটি নিয়ে স্থানীয়দের
অভিযোগ বিস্তর।

নিন্মনের কাজ করার অভিযোগ উঠেছে
ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে। আর এজন্যে স্থানীয়রা বেশী দায়ী করছেন এলজিইডির তদারকির
অভাবকে।

তবে জেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল
অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী এ কে এম আমিরুজজামান এসব অস্বীকার করেন। এসব অভিযোগ নিয়ে কথা বলতে ঠিকাদারি
প্রতিষ্ঠানের কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author