হজযাত্রীদের বিমান ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত অযৌক্তিক

হজযাত্রীদের
বিমান ভাড়া বারো হাজার টাকা বাড়ানোর ঘোষণাকে অযৌক্তিক বলছে খোদ হজ এজেন্সি
মালিকদের সংগঠন হাব। এতে হজ
ব্যবস্থাপনায় নেতিবাচক প্রভাবের আশঙ্কা করে ভাড়া নির্ধারণের দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি। যদিও দাবি নাকচ করে দিয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন প্রতিমন্ত্রী
বলছেন, হজকেন্দ্রিক কর্মযজ্ঞের কারণে বিমানভাড়া বাড়াতে হচ্ছে।

গত বছর
হজ প্যাকেজে বিমান ভাড়া ছিলো এক লাখ ২৮ হাজার টাকা। এবার ১২ হাজার বাড়িয়ে এক লাখ
৪০ হাজার টাকা প্রস্তাব করা হয়েছে। ওমরাসহ সাধারণ যাত্রায় ঢাকা-জেদ্দা-ঢাকা রুটে
বিমান ভাড়া ৪৮ হাজার টাকার মতো।কিন্তু
হজযাত্রীদের বিমান ভাড়া তিনগুণ বেশি। এটিসহ ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্তকে কোনভাবেই
সমর্থন করেন না এজেন্সি মালিকরা।এ বছর
হজযাত্রীর কোটা ১০ হাজার বাড়ানো হয়েছে। মোট এক লাখ ৩৭ হাজার ১৯৮ জনের অর্ধেক বহন
করবে বাংলাদেশ বিমান। বাকিটা সৌদি এয়ারলাইন্স। হাব বলছে, এর ফলে লাভের বিশাল অংক
চলে যাবে সৌদির পকেটে।

বাড়তি
ভাড়ার বিষয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রণালয় অবশ্য বলছে, ফেরার সময় যাত্রী থাকে
না। তাই লোকসান কমাতেই এ উদ্যোগ।যদিও এ ব্যাখ্যা মানতে নারাজ হজ এজেন্সি মালিকেরা। তারা বলছেন, ফিরতি ফ্লাইটের কারণে ভাড়া দ্বিগুণ করা যেতো।
স্বাভাবিকের চেয়ে তিনগুণ না।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author