বিশ্বনেতাদের অকুন্ঠ প্রশংসায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

কালের পরিক্রমায় অতীত হতে চলেছে আরো একটি বছর। বিদায়বেলা রেখে যাচ্ছে নানান স্মৃতি। এসব স্মৃতিগাঁথার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে, বিদায়ী বছরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নানামুখী অর্জন। দেশের উন্নয়ন ধরে রেখে জাতিকে একটি গতিশীল নেতৃত্ব দেয়ায় তিনি যেমন বিশ্বনেতাদের অকুণ্ঠ প্রশংসা কুড়িয়েছেন, তেমনি অর্জন করেছেন অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মাননা।

অথনৈতিক, সামাজিক, নারীর ক্ষমতায়ন, দাপুটে নেতৃত্বদান নানাক্ষেত্রে বলিষ্ঠ অবদান রাখায় চলতি বছর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঝুলিতে জমা হয়েছে দেশি বিদেশি অনেক পুরস্কার। সার্বিক টিকাদান কর্মসূচিতে সাফল্যের জন্য গত ২৩ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রীকে ভ্যাকসিন হিরো পুরস্কার দেয় জাতিসংঘের গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাকসিনেশন অ্যান্ড ইমিউনাইজেশন।

ইউনিসেফের পক্ষ থেকে দেয়া হয় চ্যাম্পিয়ন অব স্কিল ডেভেলপমেন্ট ফর ইয়ুথ শীর্ষক সম্মাননা। নারীর ক্ষমতায়নে অসামান্য অবদানের জন্য মার্চে প্রধানমন্ত্রীকে লাইফটাইম কন্ট্রিবিউশন ফর উইমেন এমপাওয়ারমেন্ট অ্যাওয়ার্ড দেয় ইনস্টিটিউট অব সাউথ এশিয়ান উইমেন।

আঞ্চলিক শান্তি ও সমৃদ্ধি ধরে রাখায় অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ঠাকুর শান্তি পুরস্কার-২০১৮ প্রদান করে কলকাতা এশিয়াটিক সোসাইটি। দেশীয়ভাবে গেল ১৬ সেপ্টেম্বর ডক্টর কামাল স্মৃতি ইন্টারন্যাশনাল এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ড পান শেখ হাসিনা। ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি খ্যাতনামা বিজ্ঞানী এ পি জে আব্দুল কালামের স্মৃতির উদ্দেশ্যে এ পুরস্কার প্রবর্তন করা হয়।

এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক আউটলুক
২০১৯ উল্লেখ করেছে,
বাংলাদেশ এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতির দেশ।
এইচএসবিসি তাদের ২০১৮ সালের প্রতিবেদনে ভবিষ্যদ্বাণী করেছে, ২০৩০
সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে ২৬তম বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ এবং বিশ্বের তিনটি দ্রুততম
অর্থনীতির একটি হয়ে উঠবে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author