গাজীপুরে বাড়ছে বায়ুদূষণ

রাজধানী ঢাকার পাল্লা দিয়ে গাজীপুরেও বাড়ছে  বায়ূ দূষণ।  ধূলো বালি আর ভাঙ্গা রাস্তার ভোগান্তি জেলাবাসীর নিত্য সঙ্গী। ধুলোমাখা রাজপথে হাঁটারও পরিবেশ নেই। উন্নয়ন প্রকল্পের নির্মাণ কাজ, ভাঙ্গাচোরা রাস্তা-ঘাট, ইটভাটার ধোঁয়ায় বায়ূ দূষণের হার মারাত্বক পর্যায়ে পৌঁছেছে। আর পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা বলছেন, দূষণ থেকে রক্ষায় একটি প্রকল্প সংশ্লিষ্ট দপ্তরে পাঠানো হয়েছে।

গাজীপুরের বায়ুদূষণ
এখন রাজধানী ঢাকার সঙ্গে পাল্লা দিচ্ছে। গাজীপুর শহরের বাতাসেও ক্ষুদ্র বস্তু
কণিকার পরিমাণ মানমাত্রার চেয়ে কয়েক গুণ বেশি। জেলার মহাসড়কের ৩৩ কিলোমিটার জুড়ে ও
শহরের ভেতরের বেশির ভাগ সড়কে নির্মাণকাজ চলছে। ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়কে বিআরটি
প্রকল্প, ঢাকা টাঙ্গাইল
মহাসড়কে সাসেক প্রকল্প এবং সিটি করপোরেশনের রাস্তা নির্মাণ প্রকল্প চলমান থাকায়
এখানে প্রতিনিয়ত বায়ূ দূষণ হচ্ছে।

শুষ্ক মৌসুম নভেম্বর
থেকে মার্চ পর্যন্ত ইটভাটা, সড়কের ধুলা-মাটি, কলকারখানা, যানবাহনের ধোঁয়ার
কারণে  দূষণ বাড়ছে। এতে শসকষ্টসহ নানা রোগে
আক্রান্ত হচ্ছেন এলাকাবাসী।

স্থানীয়দের অভিযোগ, বায়ূ দূষণ
নিয়ন্ত্রণে সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে তেমন কোনো উদ্যোগ নেয়া হয়নি। আর মেয়র বললেন
ভিন্ন কথা।ধূলোবালিতে সঙ্কটে
পড়ছেন সড়কের শৃংখলায় দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরাও।

পরিবেশ অধিদপ্তরের
কর্মকর্তারা বলছেন, গাজীপুরে বায়ূ
দূষণের মূল কারণ ইটভাটা এবং সড়ক নির্মাণের চলমান কাজ। দূষণ রক্ষায় পানি ছিটানোর
তাগাদাসহ সংশ্লিষ্ট প্রকল্প কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেয়া হয়েছে বলেও জানান তারা।গাজীপুর জেলায়
ইটভাটা আছে ২৯০টি। যেখানে নিয়ম অনুযায়ী সিটি এলাকায়  ইটভাটা থাকার কথা নয়।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author