জামিন পেলে বেগম জিয়া বিদেশ যাবেন

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় কারাদণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনে হাইকোর্টের খারিজাদেশের বিরুদ্ধে আপিল করা হয়েছে। সকালে আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় আবেদন জমা দেন বেগম জিয়ার আইনজীবীরা। জামিন পেলে বিএনপি চেয়ারপারসন চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাবেন, বেশ কিছুদিন ধরেই এমন আভাস দিচ্ছিলেন বিএনপি নেতারা।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় ২০১৮ সালের ২৯ অক্টোবর ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক আখতারুজ্জামান বিএনপি চেয়ারপারসন  খালেদা জিয়াকে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড দেন।

চলতি বছরের ৩০ এপ্রিল দণ্ডের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে অর্থদণ্ড স্থগিত এবং সম্পত্তি জব্দের ওপর স্থিতাবস্থা দিয়ে দুই মাসের মধ্যে ওই মামলার নথি তলব করা হয়। এরপর ২০ জুন বিচারিক আদালত থেকে মামলার নথি হাইকোর্টে পাঠানো হয়। গত বছরের ১৮ নভেম্বর হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আপিল করা হয়।

গত ৩১ জুলাই বিচারপতি ওবায়দুল
হাসান ও বিচারপতি এস এম কুদ্দুস জামানের বেঞ্চ এ মামলায় বেগম জিয়ার জামিন আবেদন
খারিজ করে দেন। এর ধারাবাহিকতায় জামিন চেয়ে ১
হাজার ৪০১ পৃষ্ঠার আবেদন দাখিল করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা।

শারীরিক অসুস্থতার কারণে বেশ কিছুদিন ধরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন আছেন বিএনপি চেয়ারপারসন। এ নিয়ে বেগম জিয়ার পরিবার এবং দলের নেতারও নানা সময় উদ্বেগ জানিয়ে আসছেন। 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author