মেঘনার ভাঙনে বিলিন হচ্ছে রামগতি ও কমলনগর

মেঘনার ভাঙনে বিলিন হচ্ছে লক্ষ্মীপুরের রামগতি ও কমলনগর। বসতভিটা হারিয়ে খোলা আকাশের নিচে বাস করছে নদী তীরবর্তী মানুষ। দুই উপজেলার কয়েক হাজার পরিবারে এখন চলছে দুর্দশা। পরিকল্পিতভাবে নদী তীর রক্ষা বাঁধ নির্মাণ করা গেলে ভাঙনরোধ সম্ভব বলে মনে করছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

বর্ষা মৌসুম শেষ হলেও নদীতে ঘূর্ণি সৃষ্টির কারণে মেঘনার ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। গেল দুই মাসে রামগতি উপজেলার আলেকজান্ডার ও কমলনগর উপজেলার চর ফলকন এলাকার বিশাল অংশ নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। হারিয়ে গেছে বসতভিটা, ফসলি জমি, হাট-বাজার, স্কুল-মাদ্রাসা ও মসজিদ-মন্দির। ভিটেমাটি হারিয়ে এসব মানুষ অন্যের জায়গায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলে নদী ভাঙনরোধের চেষ্টা করা হলেও অনিয়মের অভিযোগ করলেন স্থানীয়রা। পরিকল্পিতভাবে নদী ড্রেজিং না করে শত চেষ্টা করলেও নদীভাঙ্গন ঠেকানো সম্ভব নয় বলে মনে করেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

ভাঙন রোধে একটি প্রকল্প গ্রহন করা হয়েছে বলে জানান লক্ষীপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী প্রকৌশলী ফরুক আহমেদ। এদিকে পরিকল্পিতভাবে নদী তীর রক্ষাবাঁধ নির্মাণের দাবিতে ‘কমলনগর-রামগতি বাঁচাও মঞ্চ’ নামে একটি সংগঠনের ব্যানারে মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচী পালন করেছেন স্থানীয়রা।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author