ত্রিদেশীয় সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে ৩৯ রানে হারিয়ে ফাইনালে উঠলো স্বাগতিক বাংলাদেশ। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে মাহমুদুল্লাহর ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ৭ উইকেটে ১৭৫ রান করে টাইগাররা। জবাবে সাকিব বাহিনীর নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে সবকটি উইকেট হারিয়ে ১৩৬ রান করে জিম্বাবুয়ে।

অবশেষে স্বরূপে ফেরায় স্তস্তির নি:শ্বাস মিললো টাইগার শিবিরে। ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিংসহ তিন বিভাগেই সমান তালে পারফর্মেন্স করে সাকিব বাহিনী। তিন পরিবর্তনের দুই ক্রিকেটারের অভিষেকের ম্যাচে ঘুরে দাঁড়িয়ে ফাইনাল খেলা নিশ্চিত করে বাংলাদেশ।

চট্টগ্রামে টস জয়ী জিম্বাবুয়ে, ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রণ জানায় টাইগারদের। শুরুটা দুর্দান্ত করেন দুই স্বাগতিক ওপেনার শান্ত ও লিটন। ৪৯ রানের জুটি করে মাঠ ছাড়েন শান্ত। এরপর লিটন ৩৮, সাকিব ১০ ও মুশফিক সাজঘরে ফেরেন ৩২ রান করে।

অন্যপ্রান্তে থাকা মাহমুদুল্লাহ
হয়ে ওঠেন প্রতিরোধ্য। ক্যারিয়ারের চতুর্থ হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন তিনি। তার ৬২ রানের
ঝড়ো ইনিংসের সুবাদে শেষ পর্যন্ত ৭ উইকেটে ১৭৫ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ।

জবাবে শুন্য রানেই ব্রেন্ডন
টেইলরকে সাজঘরে ফেরান টাইগার পেসার সাইফুদ্দিন। ২ রান পরই সাকিবের ঘূর্ণিতে মাঠ
ছাড়েন চাকাভা। শফিউলের শিকারের পর অভিষেকেই উইকেট তুলে নেন আমিনুল ইসলাম।

দলের একপ্রান্ত আগলে রাখেন মুতুম্বামি। ক্যারিয়ারে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিলেও শেষ পর্যন্ত দলকে জয়ের বন্দরে নিতে পারেননি তিনি। ফলাফল এক ম্যাচ হাতে রেখেই ফাইনালে উঠে যায় বাংলাদেশ।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author