ঈদের ছুটিতে পর্যটকদের পদভারে মুখরিত কক্সবাজার। সাগরের নীল জলরাশিতে উচ্ছ্বাসের পাশাপাশি প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে মেতেছে নানা বয়সী মানুষ। বৈরী আবহাওয়াও সে উচ্ছ্বাসে বাধা হতে পারেনি। আর পর্যটকদের নিরাপত্তায় সার্বক্ষণিক কাজ করছে পুলিশ।

ঈদের ছুটিতে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র
সৈকত কক্সবাজারে ভিড় করছে লাখো পর্যটক। সাগর আর পাহাড়ের মিতালী প্রাকৃতিক অপরুপ
সৌন্দর্য্য উপভোগ করছেন তারা। বৈরী
আবহাওয়া উপেক্ষা করে সমুদ্র সৈকত ছাড়াও দরিয়ানগর, হিমছড়ি,
ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক, রামুর বৌদ্ধ মন্দির পর্যটকে মুখরিত। জেলার পাঁচ শতাধিক হোটেল-মোটেল,
গেস্টহাউস ও কটেজে কোন কক্ষই খালি নেই। 

নগর জীবনের যান্ত্রিকতা থেকে দূরে নীল
সাগরের জলরাশিতে আনন্দে মেতেছেন ভ্রমণ পিপাসুরা। সে উল্লাসে মুখরিত বিশ্বের
দ্বীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত।

পর্যটকদের সমুদ্র স্নানে নিরাপত্তা দিতে কাজ করছে সরকারি নিরাপত্তা কর্মীরা। পর্যটকরা যাতে স্বাচ্ছন্দে আনন্দ উপভোগ করতে পারে, সে জন্যে মাঠে আছে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের নেতৃত্বে বিশেষ টিম, জেলা পুলিশ ও ট্যুরিস্ট পুলিশের সদস্য।

পর্যটকদের নিরাপত্তা দিতে কাজ করছে ৩টি
বেসরকারি লাইফ গার্ড সংস্থার অর্ধশতাধিক প্রশিক্ষিত লাইফ গার্ড কর্মী।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author