ঈদুল আজহার দ্বিতীয় দিনে আজ রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় পশু কোরবানি করা হয়েছে। আর বর্জ্য অপসারণে সকাল থেকেই কাজ শুরু করেছে সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা। সচেতনতাবোধ থেকে অনেকে আবার নিজ দায়িত্বেই বর্জ্য অপসারণ করেন।

ইসলামের বিধান অনুযায়ী
মোট তিন দিন পশু কোরবানি দেয়া যায়। তাই ঈদের দ্বিতীয় দিনও রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায়
পশু কোরবানি করা হয়। আর পুরাতন ঢাকায় ঈদের দিনের চেয়ে পরের দিনই বেশি  পশু কোরবানি দেয়া হয়।

কসাইরা গরু প্রতি ২
থেকে ৮ হাজার টাকা পর্যন্ত নিয়ে থাকে। আর যারা পশু জবাই করেন তাদের জন্য নির্ধারিত
কিছু নেই।

দক্ষিণ সিটির বর্জ্য
অপসারণ ব্যবস্থা নিয়ে সন্তুষ্ট সাধারণ মানুষ।

আর বেধে দেয়ার সময়ের
আগেই বর্জ্য অপসারণ সম্ভব হবে বলে মনে করেন, ঢাকা দক্ষিণ সিটির বর্জ্য ব্যবস্থাপনা
কমিটির  সদস্য হাসিবুর রহমান মানিক।

আগের চেয়ে জনগণ সচেতন
হওয়া দ্রুত বর্জ্য অপসারণ করা সম্ভব হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author