বন্যার ক্ষয়ক্ষতি মোকাবেলায় যথেষ্ট প্রস্তুতি আছে বলে জানিয়েছেন
সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলো। খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, প্রচুর মজুদ থাকায় খাদ্য সংকট হবে না। আর দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও
ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী জানান, বন্যাকবলিত জেলাগুলোতে ত্রাণ সহায়তার পাশাপাশি গবাদি পশুর খাবার
ব্যবস্থা করছে সরকার। সকালে সচিবালয়ে জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে বৈঠক শেষে এসব
কথা বলেন তারা। আরো জানাচ্ছেন, নাসির উদ্দিন।

সোমবার পর্যন্ত বন্যার কবলে পড়ে দেশের ২০টি জেলা। ভারত, চীন ও নেপালে বন্যা থাকলে বাংলাদেশের পরিস্থিতি আরো অবনতি হতে
পারে বলে জানান দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী। তবে পরিস্থিতি যা-ই হোক না কেন, তা মোকাবেলায় প্রস্তুত আছে সরকার, জানান তিনি।

বন্যা কবলিত ২০ জেলায় ত্রাণ সহায়তার ব্যবস্থা করেছে সরকার। আমরা দেখেছি গবাদি পশুর খাদ্য সংকট হচ্ছে। সেই ধরণের খাবারের সংস্থান করছি আমরা। এমনকি শিশুদের জন্য বিশেষ খাবার দেয়া হবে।

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে চালসহ অন্যান্য ত্রাণ বিতরণে সক্রিয় হতে জেলা প্রশাসকদের নির্দেশনা
দেন খাদ্যমন্ত্রী।

কয়েক দিন ধরেই দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পানি জমে আছে। তবে খাদ্য সংকটে পড়তে হবে না। কারণ প্রচুর মজুদ আছে আমাদের।

পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক জানান, বেশি স্রোতের কারণে অনেক এলাকায় বেড়িবাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বন্যা
পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার আগ পর্যন্ত এসব বাঁধ সংস্কার করা কঠিন হবে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author