ইসলামিক পর্যটনকে বিশ্ব বাণিজ্যে ব্রান্ড হিসেবে গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এজন্য সুনির্দিষ্ট রোডম্যাপ অনুযায়ি কাজ করতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি তাগিদ দেন তিনি। বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর একটি হোটেলে, ২০১৯ সালের জন্য ওআইসি সদস্যভুক্ত দেশগুলোর পর্যটন নগরী হিসেবে ঢাকাকে নির্বাচিত করা নিয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে একথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, মুসলমানদের ভাগ্য নিয়ে কেউ যাতে ছিনিমিনি খেলতে না পারে, সেজন্য ওআইসিভুক্ত দেশগুলোকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

বাংলাদেশের জাতীয় আয়ে ভ্রমণ ও পর্যটন খাতের প্রত্যক্ষ অবদান প্রায় ৫০ হাজার কোটি টাকা, যা জিডিপির ২ শতাংশেরর উপরে। এমন সম্ভাবনা বিবেচনায় ২০১৯ সালের জন্য সদস্যভুক্ত দেশগুলোর পর্যটন নগরী হিসেবে ঢাকাকে নির্বাচিত করেছে ওআইসি। এ উপলক্ষে রাজধানীর একটি হোটেলে দুইদিনব্যাপী আনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এসময় বাংলাদেশের বৈচিত্র পুর্ণ সুন্দর্য্য ও এতিহ্যবাহী খাবারগুলোকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরার তাগিদ দেন। নিজেদের আকর্ষনী স্থান ও ঐতিহ্যগুলো বিশ্বের মানুষের সামনে তুলে ধরার ব্যবস্থা করতে হবে বলেও জানান শেখ হাসিনা। 

মুসলিম উম্মার শান্তি রক্ষায় নিজের সমস্যা আলোচনার মাধ্যকে সমাধানের আহ্বান জানিয়ে পর্যটন খাতের উন্নয়নে সরকারের নানা পদক্ষেপ তুলে ধরেন। প্রধানমন্ত্রী আরও বলে ইসলামী অর্থনীতি নবরুপে বিকাশ করেছে এ খাতগুলো বিকাশের জন্য ওআইসি দেশগুলোর সহযোগিতা প্রয়োজন। 

আগামি
তিন বছরে ইসলামী পর্যটনের বাজার ২৪৩ বিলিয়ন ডলারে পৌছাবে এমন আশার কথাও শোনান
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author