মেসি-রোনালদোর আধিপত্য চূর্ণ, ব্যালন ডি'অর মদ্রিচের

মেসি-রোনালদোর এক দশকের আধিপত্য চূর্ণ করে  ব্যালন ডি’অর জিতলেন রিয়াল মাদ্রিদের ক্রোয়াট তারকা লুকা মদ্রিচ। স্থানীয় সময় সোমবার  সন্ধ্যায় প্যারিসে জমকালো অনুষ্ঠানে বর্ষসেরা পুরষ্কার হাতে তোলেন এই ক্রোয়েশিয়ান মিডফিল্ডার। গতবারের বিজয়ী পর্তুগিজ রোনালদো দ্বিতীয় আর আর্জেন্টাইন তারকা মেসি হয়েছেন পঞ্চম। সেরা দশে নেই নেইমার। তার অবস্থান ১২তম।

গেল এক দশক ধরে ফুটবল অঙ্গনে রাজত্ব করে একের পর এক অ্যাওয়ার্ড তুলে নেন- হয় মেসি, নয়তো রোনালদো। ১০ বছরে তারা বর্ষসেরার পুরস্কার জিতে নেন সমান ৫বার করে। মেসি-রোনালদোর সেই রাজত্বে হানা দিয়ে এবার বর্ষসেরা পুরস্কার ব্যালন ডি অ’র জিতলেন ক্রোয়াট মিডফিল্ডার লুকা মদ্রিচ।

গেল মৌসুমে ইতিহাসের প্রথম ক্লাব হিসেবে রিয়াল মাদ্রিদের টানা তৃতীয়বার চ্যাম্পিয়ন্স লিগসহ ইউয়েফা সুপার কাপ, স্প্যানিশ সুপার কাপ ও ক্লাব বিশ্বকাপ শিরোপাও জেতেন মদ্রিচ। রাশিয়া বিশ্বকাপে ক্রোয়েশিয়াকে ফাইনালে তুলতেও রাখেন বড় অবদান। তার পুরষ্কার স্বরুপ আগস্টে ইউয়েফার বর্ষসেরা ফুটবলার এবং ‘দ্য বেস্ট ফিফা মেনস প্লেয়ার’ নির্বাচিত হন ৩৩ বছর বয়সী এই মিডফিল্ডার।

১৮০ দেশের সাংবাদিকদের ভোটে এবার সেরা তিনেও জায়গা পাননি মেসি। বিশ্বকাপে বাজে পারফরম্যান্সের কারণে পঞ্চম হয়েছেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। নেইমার নেই সেরা দশেই। তার অবস্থান ১২তম।

ব্যালন ডি’অরের দৌড়ে থাকলেও কিলিয়ান এমবাপে হয়েছেন চতুর্থ। তবে একেবারে খালি হাতে ফেরেননি বিশ্বকাপ জয়ী ফরাসি ফরোয়ার্ড। এবার থেকেই শুরু হওয়া অনূর্ধ্ব-২১ ব্যালন ডি’অর ‘কোপা ট্রফি’ জিতে নেন এই পিএসজি তারকা। আর প্রথমবার দেয়া মেয়েদের ব্যালন ডি’অর হাতে তুলে নেন নরওয়ের স্ট্রাইকার আদা এগেরবার্গ।

ফিফার বর্ষসেরা ও ফ্রান্স ফুটবল সাময়িকীর ব্যালন ডি’অর পুরস্কার শুরুতে আলাদাভাবে দিলেও, ২০১০ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত একীভূত হয়। ২০১৬ সাল থেকে আবারও আলাদাভাবে দেয়া হয় পুরস্কার দু’টি। বিশ্বজুড়ে সাংবাদিকদের ভোটে নির্ধারিত হয় ব্যালন ডি’অর জয়ীর নাম।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment