ডেস্ক রিপোর্ট: বৃহত্তর নোয়াখালীর কৃষি জমিতে জলাবদ্ধাতা নিরসন ও সেচ সুবিধা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে খাল খনন,পুনঃখনন ও পানি সংরক্ষণ প্রকল্প হাতে নিয়েছে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন, বিএডিসি। এরই মধ্যে বিভিন্ন স্থানে কাজ শুরু হছে। এর ফলে এক ফসলী জমিতে বছরে তিনটি ফসল উৎপাদন সম্ভব হবে। এনিয়ে নতুন করে স্বপ্ন দেখছেন কৃষকরা।

বিএডিসির তথ্য অনুযায়ী বৃহত্তর নোয়াখালী অঞ্চলে জলাবদ্ধতার কারণে ৪০ হাজার হেক্টর জমি এবং লবনাক্ততার কারণে আরো ৭০ হাজার হেক্টর জমি অনাবাদী পড়ে থাকে। এছাড়া ফসলহানির কারণে কৃষিতে লোকসান ও মৌসুমী বেকারত্ব দেখা দেয়। এসব জমি চাষের আওতায় আনার লক্ষ্যে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন, বিএডিসি প্রায় দেড়শ কোটি টাকা ব্যয়ে নোয়াখালী,ফেনী ও লক্ষ্মীপুর জেলায় ক্ষুদ্রসেচ উন্নয়ন প্রকল্প হাতে নেয়।

একাধিক প্রকল্পের কাজ শেষ পর্যায়ে। অনেকগুলোর অগ্রগতিও চোখে পড়ার মতো। এনিয়ে নতুন করে স্বপ্ন দেখছেন তিন জেলার কৃষকরা। বিএডিসির প্রকল্প পরিচালক মোহাম্মদ নূরনবী জানান, এর মাধ্যমে তিন জেলার দীর্ঘস্থায়ী জলাবদ্ধতা নিরসন হবে।

একইসঙ্গে ২০ হাজার ৩৩৮ হেক্টর জমিতে সেচ সুবিধা সম্প্রসারনের মাধ্যমে প্রতি বছর ৯১ হাজার ৫২১ মেট্রিকটন খাদ্য শস্য উৎপাদন হবে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment