মেক্সিকোয় সাড়ে ৬শ বছরেরও বেশি পুরনো মন্দির এবং ৫শ বছরের পুরনো পিরামিডের সন্ধান পাওয়া গেছে। রাজধানী মেক্সিকো সিটি থেকে প্রায় ৭০ কিলোমিটার দক্ষিণে মোরেলস প্রদেশে প্রাচীন এ স্থাপনা দুটির সন্ধান পান প্রত্নতাত্ত্বিকরা।

গেল বছরের সেপ্টেম্বরে মেক্সিকোর বিভিন্ন অঞ্চলে ৭ দশমিক ১ মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হানে। রাডারের বদৌলতে জানা যায়, ভূমিকম্পের আঘাতে দক্ষিণের মোরেলস রাজ্যে ৫শ বছরের পুরনো টিওপানজোলকো পিরামিডটির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতির পরিমাণ জানতে সেখানে অনুসন্ধান শুরু করে দেশটির ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব এনথ্রোপোলজি এন্ড হিস্ট্রি আইএনএএইচ।

অনুসন্ধানের এক পর্যায়ে গত ১১ জুলাই পিরামিডের ভেতরে আরো একটি স্থাপনা অস্তিত্ব খুজে পান প্রত্নতাত্ত্বিকরা। পরীক্ষা নিরীক্ষার পর তারা মোটামুটি নিশ্চিত হন, এটি একটি বৃষ্টি দেবতার মন্দির যা নির্মিত হয় ১১৫০ সালে।

মন্দিরটির আয়তন দৈর্ঘ্যে ৬ আর প্রস্থে ৪ মিটার। ভেতরে আছে ধূপ জ্বালানোর জায়গাসহ মাটির পাত্রের কয়েকটি টুকরো। প্রত্নতত্ববিদদের ধারণা, সে সময় এ অঞ্চলে এজটেক নামে এক সম্প্রদায়ের বসবাস ছিল যারা এরি মধ্যে বিলুপ্ত হয়ে গেছে। বৃষ্টি দেবতা টিলালোককে উৎসর্গ করে তারাই মন্দিরটি নির্মাণ করেছিল। এটি টিলাহুইকা সংস্কৃতির নির্দেশক বলে ধারণা প্রত্নতত্ববিদদের।

মন্দির নিয়ে এখনো গবেষণা চলছে। তবে এই মুহূর্তে যা অবস্থা তাতে চেষ্টা করলে  মন্দির ও পিরামিড- দুটোরই অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখা সম্ভব হবে বলে মনে করেন প্রত্নতত্ববিদরা।

 

 

 

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment