খাগড়াছড়িতে একটি অনুষ্ঠানে পালনের জন্য জড়ো হতে থাকা ইউপিডিএফ সদস্যদের লক্ষ্য করে হামলার ঘটনা ঘটেছে। সন্ত্রাসীদের ছোড়া গুলিতে ছয় জন নিহত হয়েছেন। গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছেন অন্তত তিন জন। প্রত্যক্ষদর্শী ও ইউপিডিএফের সদস্যরা এই হামলার জন্য জেএসএস ও ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিককে দায়ী করছেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল সাড়ে ৮টার দিকে খাগড়াছড়ি শহরের শনিরগড় বাজার ও নাড়ানখাইয়া এলাকায় এই হামলার ঘটনা ঘটে। পাহাড়ি সংগঠন ইউনাটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের লোকজন একটি কর্মসূচি উপলক্ষে জড়ো হচ্ছিলেন। এ সময় অতর্কিতে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা হামলা চালায়। তারা এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করে। এ সময় ইউপিডিএফ সদস্য ও সাধারণ লোকজন হতাহত হন। ঘটনার পর খাগড়াছড়ি আধুনিক সদর হাসপাতালে ছয় জনের মৃতদেহ ও গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তিনজনকে একই হাসপাতালে আনা হয়েছে।

নিহতদের মধ্যে তিনজনের নাম জানা গেছে। তারা হলেন- তপন চাকমা, এল্টন চাকমা ও জিতায়ন চাকমা। এর মধ্যে তপন চাকমা ইউপিডিএফ সহযোগী সংগঠন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এবং এল্টন চাকমা একই সংগঠনের সহ সম্পাদক। জিতায়ন চাকমা সাধারণ পথচারী।

গুলিবিদ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে সোহেল চাকমা, সমর বিকাশ চাকমা ও  সখিডন চাকমাকে।

খাগড়াছড়ির পুলিশ সুপার আলী আহমদ খান জানান,প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন ইউপিডিএফের প্রতিপক্ষ জেএসএস ও ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিকের সন্ত্রাসীরা এই হামলা চালিয়েছে। তবে তদন্তের পর এ বিষয়ে নিশ্চিত করে বলা যাবে। আধিপত্য বিস্তারের দ্বন্দ্বে এই হামলা হয়ে থাকতে পারে।

ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পুরো শহরেই পরিস্থিতি থমথমে হয়ে আছে।

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment