কোরবানীর ঈদকে ঘিরে এবছরও লবনের দাম যেন দ্বিগুন না হয় সে বিষয়ে নজর দেয়ার দাবী জানিয়েছেন চামড়া ব্যবসায়ীরা। চলতি বছর চামড়ার মূল্য কম নির্ধারণ হলেও পাচার হওয়ার তেমন আশংকা নেই বলে মনে করেন তারা। পাচার রোধে সীমান্তে নজর বাড়ানোর তাগিদও দেন ব্যবসায়ীরা।

এবছর ঈদুল আযহায় ঢাকায় গরুর প্রতি বর্গফুট চামড়া ৪৫ থেকে ৫০ টাকা এবং ঢাকার বাইরে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা দাম নির্ধারিত হয়েছে। আর সারাদেশে খাসির চামড়া প্রতি বর্গফুট ১৮ থেকে ২০ টাকা এবং বকরির চামড়া ১৩ থেকে ১৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়… গত বছরের তুলনায় কম।

চামড়া ব্যবসায়ীরা বলছেন,পর্যাপ্ত লবন মজুদ থাকার পরও প্রতিবছর এ সময় লবনের দাম হয় দ্বিগুনেরও বেশি। এবছর চামড়া পাচার হওয়ার আশঙ্কা নেই বলে জানালেন ব্যবসায়ীরা।

পচনরোধে চার থেকে পাঁচ ঘন্টার মধ্যে পশুর চামড়ায় লবন মাখাতে মৌসুমি ব্যবসায়ীদের পরামর্শ দেন তারা।

 

 

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment