সারাদেশে সিরিজ বোমা হামলার ১৩ বছর পূর্তি আজ। ওই হামলার মধ্যদিয়ে নিজেদের অস্তিত্বের কথা জানান দেয় জঙ্গি সংগঠন জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ, জেএমবি। তবে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতায় ভেঙে পরে তাদের সাংগঠনিক কাঠামো। জেএমবি’র আদর্শে এখন সক্রিয় নব্য জেএমবি।

২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে একযোগে ৬৩ জেলার সাড়ে চারশ’ জায়গায় প্রায় পাঁচশ’টি বোমার বিস্ফোরণ ঘটায় জঙ্গি সংগঠন জেএমবি। হামলায় দু’জন নিহত ও আহত হয় শতাধিক।

ওই ঘটনায় সারাদেশে দায়ের করা হয় ১৬১টি মামলা। ১১৩টি মামলার রায়ে ১৫ জঙ্গিকে মৃত্যুদণ্ড আর ১৩১ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়। বিভিন্ন মেয়াদে ১৮৪ জনকে সাজা ও ১১৮ জনকে খালাস দেয়া হয়। এছাড়া বিস্ফোরক আইনে করা বিচারাধীন ৪৮টি মামলা স্বাক্ষ্যগ্রহন পর্যায়ে রয়েছে।

হামলার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধর-পাকড় ও জেএমবিকে নিষিদ্ধ করায় সংগঠনটি নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়ে। ২০০৭ সালে সংগঠনের শীর্ষ নেতা শায়খ আব্দুর রহমান ও বাংলা ভাইয়ের ফাঁসি হয়। পরে মাওলানা সাইদুর রহমান গ্রেফতার হলে তাদের সব অপচেষ্টাকে নস্যাৎ হয়।

ওই একই আদর্শে এখন কার্যক্রম চালাচ্ছে নব্য জেএমবি। তবে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতিতে কোণঠাঁসা হয়ে পড়েছে তারাও।

 

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment