সংস্কারের দুই সপ্তাহ না পেরোতেই চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে নীলফামারীর জলঢাকার দুটি সড়কের ১৮ কিলোমিটার অংশ। স্থানীয়দের অভিযোগ, কর্তৃপক্ষের যোগসাজশে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করায় সড়ক দুটির এমন হাল।

নীলফামারীর জলঢাকার ফাদুর দর্গা থেকে ডোমার পযর্ন্ত ১২কিলোমিটার সড়কে খানাখন্দে ভরা। একই অবস্থা ডোমার বাসষ্ট্যান্ড থেকে দেবীগঞ্জ পর্যন্ত ৬ কিলোমিটার এলাকার। এর ফলে সড়ক দু’টি দিয়ে যাল চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। জনগনের দূর্ভোগ নিয়ে  গেল ৩ মে সড়ক দু’টি নিয়ে মোহনা টেলিভিশিন-এ প্রতিবেদন প্রকাশের পর টনক নড়ে কর্তৃপক্ষের। জুন মাসের মাঝামাঝি সংস্কার কাজ শুরু করে জুলাই মাসেই শেষ করা হয়।

তবে সংস্কারের কিছু দিনের মধ্যেই পাথর খুলে আসছে। আরো কিছুদিন পর গর্তের সৃষ্টি হয়ে সড়কে চলাচল বন্ধ হওয়ার শঙ্কা করছেন এলাকাবাসী। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে নিন্মমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ করলেন স্থানীয়রা।

বৃষ্টিতে সংস্কার করায় কাজের মান ভালো হয়নি বলে মনে করছেন সড়ক ও জনপথ বিভাগের এই কর্মকর্তা। ডোমার-দেবীগঞ্জ সড়কের ৬শ’ মিটারের জন্য ৬০ লাখ ও রেলগেট থেকে ফায়ার সার্ভিস পযর্ন্ত ১হাজার মিটারের ২৮ লাখ টাকা এবং ফায়ার সার্ভিস থেকে তিনবট পর্যন্ত ৭৫০ মিটারের জন্য ব্যয় করা হয় ২৫ লাখ টাকা।

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment