শ্রমিকদের ধর্মঘট, শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ও মালিকদের ‘নিরাপত্তা’র অজুহাতে রাজধানীর অভ্যন্তরীণ রুটগুলোতে আজও গনপরিবহণ চলাচল করছে না। শুধু বিআরটিসির কয়েকটি বাস চলছে, যা প্রয়োজনের তুলনায় অত্যন্ত অপ্রতুল।

সড়কে রিকশা, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস চলাচল করছে। বিভিন্ন গন্তব্যগামী শত শত মানুষ রাস্তায় দাঁড়িয়ে আছেন বা হাঁটছেন। রাইড শেয়ারিং যান, রিকশা বা অটোরিকশা, বিআরটিসির বাসে বা যেভাবেই হোক, গন্তব্যে যাওয়ার প্রাণপণ চেষ্টা করছেন তারা।

এদিকে, শুক্রবার সন্ধ্যার পর রাজধানীর মহাখালী, সায়েদাবাদ, গুলিস্তান, শ্যামলী ও গাবতলী টার্মিনাল থেকে দূরপাল্লাপার কিছু বাস ছেড়ে যায়। পরিবহন মালিক ও শ্রমিক সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দিনে তারা বাস চালাতে পারছেন না, রাতে পারছেন বলে রাতে চালানো হচ্ছে।

একইভাবে দিনভর বন্ধ থাকলেও দেশের সব জেলা থেকে গতরাতে দূরপাল্লার যান চলাচল শুরু হয়। শুক্রবার রাতের মতো আজ ভোরেও বিভিন্ন জেলা থেকে রাজধানীর উদ্দেশে বাস ছেড়ে আসে। তবে সকাল থেকে আবার বন্ধ করে দেয়া হয়। দিনের বেলায় বাস চলাচলের সিদ্ধান্ত নিতে আগামীকাল পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকবে মালিক সমিতি।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment