সরকারি নির্দেশ উপেক্ষা করে বান্দরবানে পাহাড়ের পাদদেশে ঝুকিপূর্ণ বসবাস কিছুতেই বন্ধ হচ্ছে না। এতে প্রতিবছর বাড়ছে প্রাণহানি ও ক্ষয়ক্ষতির ঘটনা। প্রশাসনের দাবি, পাহাড়ে অবৈধ বসবাসকারীদের উচ্ছেদে নিয়মিত অভিযান চলছে।

প্রতিবছর পাহাড় ধসে ব্যাপক প্রাণহানী ঘটলেও কমছে না ঝুঁকিপূর্ণ বসবাস। ভাগ্যের পরিবর্তনও ঘটছে না এসব পরিবারের। বরং পাহাড় কেটে যেনতেনভাবে বসবাসেই অভ্যস্থ এসব মানুষ। আর প্রবল বৃষ্টি দেখা দিলেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিরাপদে সরে যেতে মাইকিং করা হয়। গেল বছর পাহাড় ধসে মারা যায় ১৩জন। আর চলতি বছর এ পর্যন্ত মারা গেছে শিশুসহ ৭জন।

বান্দরবান জেলা সদরের ইসলামপুর, ক্যামলং, বালাঘাটা, কালাঘাটা, ফানছি ঘোনা, বড়ুয়ার টেকসহ বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধসের সম্ভাবনা রয়েছে।

জেলা প্রশাসন ও পৌরসভার পক্ষ থেকে পাহাড়ে ঝুঁকিপূর্ণ বসবাসকারীদের সর্তক করার পাশাপাশি ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে। জেলা প্রশাসনের তথ্যমতে বান্দরবান জেলার আট উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসবাস করছে প্রায় ১ হাজার ৪শ’ ৪৪টি পরিবার।

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment