সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী এখনো সব ব্যাংক ঋণের সুদের হার এক অঙ্কে নামানো হয়নি, এমন অভিযোগ উদ্যোক্তাদের। তবে ব্যাংক সংশ্লিষ্টরা দাবি করছেন, সব ব্যাংকই ঋণের সুদের হার কমিয়ে আনবে। আর ড. খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদের মতে,ঋণের সুদের হার কমানোর নির্দেশনা বাস্তবায়ন হলে দুর্নীতি আরও বাড়বে।তার মতে, ব্যাংকিংখাতে সংস্কারে মনোযোগী গতে হবে  সরকারকে।

বিনিয়োগ সহায়ক পরিবেশ তৈরিতে ব্যাংক ঋণের সুদের হার এক অঙ্কে নামিয়ে আনার নির্দেশ ছিল। এ লক্ষ্যে ব্যাংকের করপোরেট কর হার আড়াই শতাংশ কমিয়ে সাড়ে ৩৭ শতাংশ করার ঘোষণা আসে নতুন বাজেটে।

পয়লা জুলাই থেকে ঋণের সুদের হার কমানোর নির্দেশনা থাকলেও তা বাস্তবায়নে গড়িমসি করছে ব্যাংকগুলো। বিনিয়োগের স্বার্থে শিগগিরই এ নির্দেশনা কার্যকরের দাবি উদোক্তাদের।

ব্যাংক সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঋণের সুদের হার কমিয়ে আনলে ব্যাংকগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হবে।তাই নির্দেশনা কার্যকরে সময় লাগছে।

ঋণের সুদের হার কমানোর নির্দেশনায় ব্যাংকগুলোতে নৈরাজ্য সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা করছেন সাবেক ডেপুটি গর্ভনর ডক্টর খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ।

ব্যাংকিং খাতের সংকট কাটাতে অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনীয় ব্যবস্থা নেয়ারও তাগিদ দেন তিনি।

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment