সমুদ্রে অস্বাভাবিক জোয়ারে পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এদিকে, মেঘনার অতি জোয়ারে প্লাবিত ভোলা সদর, তজুমদ্দিন, মনপুরা, চরফ্যাশন ও দৌলতখানের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পানি বন্দি হয়ে পড়েছে অর্ধলাখ মানুষ।

ঝড়ো হাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অমাবস্যার জ্যোয়ের প্রভাবে ফুঁসে উঠেছে উপকূলীয় এলাকার নদ-নদীসহ পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগর। প্লাবিত হয়েছে উপকূলীয় নিম্নাঞ্চল। উত্তাল সমুদ্রের ঢেউয়ের তাণ্ডবে কুয়াকাটা সৈকতের বন-বনানীর ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

জেয়ারের পানিতে কলাপাড়া পৌরশহরের বেড়িবাঁধের বাইরের শতাধিক কাঁচা বাড়ি ঘর ও সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান প্লাবিত হয়েছে। কলাপাড়া কুয়াকাটার বিকল্প সড়কের বালিয়াতলী খেয়াঘাট এলাকা দুই তিন ফুট পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

ভোলায় মেঘনার অতি জোয়ারে প্লাবিত হয়েছে নিম্নাঞ্চল। সোমবার বিকেল থেকেই মেঘনার পানি বিপদ সীমার ওপর দিয়ে প্রভাবিত হয়। এতে ভোলা সদর, তজুমদ্দিন, মনপুরা, চরফ্যাশন ও দৌলতখানের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পানি বন্দি হয়ে পড়েছে অর্ধলাখ মানুষ।

জোয়ারের পানির কারণে রাস্তাঘাট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ভেসে গেছে পুকুর ও ঘেরের মাছ। এদিকে জোয়ারে ইলিশা ফেরি ঘাট তলিয়ে যাওয়ায় গাড়ি ওঠা-নামা করতে পারছেনা।

এছাড়া ভোলা সদরের রাজাপুর, রামদাসপুর, মাঝের চর, দৌলতখানের মদনপুরসহ বেশ  কিছু নিচু ও বাঁধের বাইরের এলাকা প্লাবিত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

 

 

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author