রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরায় হামলার দুই বছর আজ। ২০১৬ সালের পয়লা জুলাই রাত থেকে পরদিন সকাল পর্যন্ত চলা ওই জঙ্গি হামলা ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানে দুই পুলিশ কর্মকর্তাসহ ২২ জন দেশি-বিদেশি নাগরিক নিহত হন। তদন্তে হামলা রহস্য উন্মোচিত হয়েছে অনেকটাই। আগামী ২৬জুলাই পুলিশকে প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালত।

রাত প্রায় সাড়ে ৮টা। গুলশান এলাকায় হলি আর্টিজানে হঠাৎই গুলি ও বিস্ফোরণের শব্দ। কিছুক্ষণের মধ্যে জানা যায় সেখানে হামলা চালিয়েছে জঙ্গিরা। বেকারির ভেতরে থাকা সবাইকে জিম্মি করে ৬ জঙ্গি।

রাতভর জঙ্গি হামলায় দুই পুলিশ কর্মকর্তাসহ ২২ জন নিহত হয়। এরা ছিলেন ৯ জন ইতালি, ৭ জন জাপান, ৩ জন বাংলাদেশী এবং ১ জন করে মার্কিন ও ভারতীয় নাগরিক।

জঙ্গিদের সঙ্গে বন্দুক যুদ্ধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কয়েকজন আহত হন। পরদিন সকালে সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে কমান্ডো অভিযানের মাধ্যমে এর অবসান ঘটে। অভিযানে ছয় জঙ্গিও প্রাণ হারায়।

জঙ্গি হামলায় এতো বেশি সংখ্যক দেশি-বিদেশি নাগরিকের মৃত্যুর ঘটনা এরআগে ঘটেনি বাংলাদেশে। হামলাকারীদের পরিচয় প্রকাশিত হওয়ার পর সেটিও আরেকটি বড় ধাক্কা দিয়েছিলো মানুষকে।

পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট-সিটিটিসি এ ঘটনার তদন্ত করছে। এরইমধ্যে আলোচিত এ ঘটনায় প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে ২১ জনের সম্পৃক্ততার প্রমাণও পেয়েছে তদন্ত সংস্থাটি।

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment