খাবার, ওষুধ ও অন্যান্য উৎপাদন সামগ্রীর দাম বেড়ে যাওয়ায় ধ্বংসের মুখে নরসিংদীর পোল্ট্রি শিল্প। গত দেড় বছরে জেলার প্রায় ৫০ শতাংশ খামারি গুছিয়ে নিয়েছেন ব্যবসা। সঙ্কট নিরসনে এ খাতের জন্য সু-নির্দিষ্ট নীতিমালা প্রনয়ণের দাবি জানিয়েছেন তারা।

নরসিংদীর রায়পুরা, বেলাব ও শিবপুরসহ সবকটি উপজেলায় কম-বেশিপোল্ট্রি খামার রয়েছে। তিন বছর আগেও জেলায় পোল্ট্রি খামারীর সংখ্যা ছিলো ৬হাজারের বেশি। এসব খামার থেকে জেলার মাংস ও ডিমের চাহিদা মেটানোর পর সরবরাহ করা হতো ঢাকাসহ  বিভিন্ন জেলায়। বর্তমানে খামারের সংখ্যা নেমে এসেছে তিন হাজারেরও নিচে। নানা কারনে লোকসানের মুখে ক্ষুদ্র খামারীরা।

এ কারনে ক্রমেই বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে খামার। ফলে খ্যাত সংশ্লিষ্টরা ভুগছেন অনিশ্চিয়তায়। মুরগী উৎপাদনকারী কোম্পানীগুলোকে নিয়ন্ত্রেণর দাবি করলেন পোল্ট্রি খমারীরা।

পোল্ট্রি খাতে অস্থিরতার জন্য মুনাফালোভি প্রতিষ্ঠানকে দায়ি করে সু-নিদৃষ্ট নীতিমালা প্রনয়ণের দাবি জানালেন ব্যবসায়ী নেতারা।

পোল্ট্রি শিল্পের সোনালী দিন ফিরিয়ে আনতে বাজার নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি বহি:বিশ্বে রপ্তানী বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তা মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment