রাজধানীতে সাম্প্রতিক কয়েকটি নির্মম দুর্ঘটনা ও প্রাণহানির পরও কমেনি বেপরোয়া যান চলাচল। সচেতন হননি পথচারী আর যাত্রীরাও। ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার না করা, যত্রতত্র রাস্তা পারাপার, ট্রাফিক আইন না মানা যেন ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে সচেতনতাই পারে দুর্ঘটনা কমিয়ে আনতে, এমনটাই বলছেন ট্রাফিক কর্মকর্তারা।

দুই বাসের চাপায় প্রথমে হাত, পরে প্রাণ হারালেন কলেজছাত্র রাজীব; এরপর গৃহকর্মী রোজিনা, নার্স মাসুদা বেগম, সংবাদকর্মী নাজিমসহ জীবন দিলেন বেশ কয়েকজন। মারাত্মক দুর্ঘটনার শিকার হন পরিবহণ কর্মী, কমিউনিটি পুলিশ, নিরাপত্তা কর্মীসহ নানা শ্রেণি পেশার মানুষ।

এরপরও বন্ধ হয়নি বেপরোয়া যান চলাচল। এখনও চলছে গতির প্রতিযোগিতা। সচেতন হচ্ছেননা যাত্রী ও পথচারিরা। সড়কের নিরাপত্তা বেষ্টনি ভেঙে চলাচলের পথ করে নিয়েছেন তারা। অনেকে ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার না করে দৌড়ে পার হচ্ছেন রাস্তা।

দুর্ঘটনা ঝুঁকি কমাতে বার বার অভিযান চালিয়েও ঝুঁকিপূর্ণ রাস্তা পারাপার বন্ধ করতে পারেনি ট্রাফিক বিভাগ। চালকদের সচেতনতা ও প্রশিক্ষণের কথাও বলেন ট্রাফিক কর্মকর্তারা।

 

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment