সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর পরই সরব হয়ে উঠেছে মাঠের রাজনীতি। প্রধান দুই দলেই মনোনয়ন প্রত্যাশী একাধিক প্রার্থী। আওয়ামী লীগের বদর উদ্দিন আহমদ কামরান ও বিএনপির আরিফুল হক চৌধুরীকে নিয়েই দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে আলোচনা বেশি। তবে দুই দলেই মনোনয়ন প্রত্যাশী রয়েছেন একাধিক নেতা। এদিকে নিজেদের প্রার্থী ঘোষণার মাধ্যমে বিএনপিকে কোনোভাবেই ছাড় দেবে না বলে অনেক আগেই জানিয়ে দিয়েছে শরিক দল জামায়াত।

জাতীয় নির্বাচনের আগেই সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচন হবে এমন খবরে আরও আগে থেকেই সরব ছিলেন সম্ভাব্য মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা। বছরের শুরু থেকেই মাঠ পর্যায়ে কাজ শুরু করেন তারা। অংশ নেন পাড়া-মহল্লার সামাজিক ও রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে।

আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতাকর্মীদের প্রত্যাশা জয় নিশ্চিত করতে পারবেন এমন ভাবমূর্তির নেতাকেই শেষ পর্যন্ত মনোনয়ন দেওয়া হবে কেন্দ্র থেকে।

আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দৌড়ে অনেকটা এগিয়ে সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। আর বিএনপি থেকে বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

জামায়াত থেকে প্রার্থিতা পেয়ে কিছুটা ভারমুক্ত অবস্থানে জামায়াতের কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদের সদস্য ও মহানগরের আমির এহসানুল মাহবুব জুবায়ের।

২০১৩ সালের ১৫ জুন অনুষ্ঠিত হয় সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচন। আওয়ামী লীগের বদর উদ্দিন আহমদ কামরানকে হারিয়ে মেয়র নির্বাচিত হন বিএনপির আরিফুল হক চৌধুরী। তবে আরিফের ক্ষমতার বেশিরভাগ সময়ই কেটেছে কারাগারে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment