রাশিয়ায় ২০১৮ বিশ্বকাপে ইতোমধ্যে নিশ্চিত হয়েছে কাঙ্ক্ষিত দলের সংখ্যা। এবার নেই শিরোপা প্রত্যাশী কয়েকটি দেশ। দেখা মিলবে না এমন খেলোয়াড়ের; যাদের পরিচয়ে তার দেশের ফুটবল পরিচিত।

ফুটবল বিশ্ব যাদের খেলায় অনেকটা বুঁদ হয়ে থাকেন, তাদের অনেককেই এবার দেখা যাবে না বিশ্বকাপের মূলমঞ্চে। এমনই একজন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের অধিনায়ক, ইকুয়েডরের আন্তোনিও ভ্যালেন্সিয়া

তালিকায় সবচেয়ে অভাগা খেলোয়াড়দের একজন হল্যান্ডের আরিয়েন রোবেন। শেষ দু’টি বিশ্বকাপই মাতিয়েছেন আক্রমণ দক্ষতায়। এবার বাছাইপর্ব থেকেই বাদ ২০১০ বিশ্বকাপের রানারআপ দেশটি। এতে প্রথম বিশ্বকাপ খেলার সুযোগ হারালেন আরেক তারকা ভার্জিল ভ্যান ডিক

ওয়েলস ও রিয়াল মাদ্রিদ স্ট্রাইকার গ্যারেথ বেল। ইনজুরির কারণে বেল যে দু’টি ম্যাচ খেলতে পারেননি, সেই ম্যাচ দুটিতেই হেরে বিদায় নেয় তার দেশ।

বায়ার্ন মিউনিখের আক্রমণাত্মক খেলায় সবচেয়ে বেশি অবদান চিলির আরতুরো ভিদালের আর আর্সেনালের নির্ভরযোগ্য স্ট্রাইকার আলেক্সিস সানচেজ। ব্রাজিলের কাছে হেরে শেষ হয়েছে তাদের বিশ্বকাপ স্বপ্ন।

মাত্র ১৯ বছর বয়সেই বরুশিয়া ডর্টমুন্ড ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় দলে নাম কুড়ান অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার ক্রিশ্চিয়ান পুলিসিক। ত্রিনিদাদের কাছে হেরে বিশ্বকাপ মঞ্চে নিজেকে প্রমাণের সুযোগ হারালেন তিনি।

ছোট দেশ গ্যাবনের বড় তারকা পিয়ের এমরিক অবমেয়াং; স্লোভেনিয়ার গোলকিপার জন ওবলাক; বায়ার্ন মিউনিখের অস্ট্রিয়ান তারকা ডেভিড আলাবা, গিনির ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার নাবি কেইটারের খেলা দেখা থেকে বঞ্চিত হবে দর্শকরা।

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment