পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ ও যুদ্ধ বন্ধে একমত হয়েছে দুই কোরিয়া। দু’দেশের সীমান্তে পিস হাউজে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন ও দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের বৈঠক শেষে যৌথ বিবৃতিতে একথা জানানো হয়। স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৯টায় দক্ষিণ কোরিয়ায় ঐতিহাসিক সফর শুরু করেন কিম জং উন। এ বৈঠককে স্বাগত জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনসহ বিশ্বনেতারা।

একটি করমর্দন, ইতিহাসের পাতায় যোগ হলো নতুন এক অধ্যায়। আর পেছনে কেটে গেছে ৬৫ বছর। কোরীয় যুদ্ধের পর এই প্রথমবারের মতো উত্তর কোরিয়ার কোন নেতার পা পড়লো দক্ষিণ কোরিয়ার মাটিতে।

লাল গালিচায় উষ্ণ অভ্যর্থনার পর গার্ড অব অনার প্রদান। দু’দেশের সীমান্তবর্তী গ্রাম পানমুনজমের পিস হাউসে বৈঠকে বসেন দুই নেতা। বৈঠকে কোরীয় উপকূলীয় এলাকাকে সম্পূর্ণ পরমাণু নিরস্ত্রীকরণে কাজ চালিয়ে যাওয়ার বিষয়ে যৌথ বিবৃতিতে সই করেন তারা। যুদ্ধ বন্ধে চলতি বছরেই সই হবে শান্তি চুক্তি। সেইসঙ্গে লিফলেট বিলিসহ উস্কানিমূলক কর্মকাণ্ড বন্ধ, যোগাযোগ বাড়ানো, যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য দেশের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার বিষয়েও একমত হয় দেশ দু’টি। দিনব্যাপী নানা কর্মসূচী শেষে যৌথ বিবৃতিতে এসব কথা জানান তারা।

দিনের কর্মসূচীতে অতিথি বইয়ে স্বাক্ষর ও সীমান্তে একটি পাম গাছ লাগান কিম জং উন ও মুন জে ইন। আগামী শরতে উত্তর কোরিয়া সফরে যাবেন উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment