রাখাইনে রোহিঙ্গা নির্যাতনের স্বাধীন তদন্ত দাবি কমওয়েলথের

মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলীয় রাখাইন প্রদেশে গণহারে মানবাধিকার লঙ্ঘনকারীদের নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে জবাবদিহিতার আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে কমনওয়েলথ। শুক্রবার সদস্য দেশগুলোর সর্বসম্মত সিদ্ধান্তে ২৫তম কমনওয়েলথের যৌথ ইশতেহারে বিষয়টি গৃহীত হয়। পাশাপাশি রাখাইনে সহিংসতা বন্ধ ও স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনার আহ্বানও জানিয়েছে সংস্থাটি।

৫৩ জাতির জোট কমনওয়েলথ কমনওয়েলথ সরকারপ্রধানদের ২৫তম সম্মেলন শেষ হয় শুক্রবার। শেষদিনে বৈঠকে প্রাধান্য পায় রোহিঙ্গা সমস্যা। দীর্ঘ আলোচনায় রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের ভূমিকার প্রশংসা করেন কমনওয়েলথ নেতারা। এ নিয়ে গৃহীত যৌথ ইশতেহারে, বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের মর্যাদার সঙ্গে স্থায়ীভাবে ফেরত নেয়ার আহ্বান জানানো হয়। প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করতে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে স্বাক্ষরিত চুক্তির কথাও উল্লেখ করা হয় ইশতেহারে।

অবিলম্বে কফি আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নের ওপরও গুরুত্বও দেন কমনওয়েলথ সরকার প্রধানরা। সব ধরনের চরমপন্থার নিন্দা জানিয়ে জাতিসংঘ মহাসচিবের জঙ্গিবাদবিরোধী কর্ম পরিকল্পনায় সমর্থন জানান তারা। সম্মেলেন বর্তমান প্রধান রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের স্থলে যুবরাজ চার্লসকে কমনওয়েলথের নতুন নেতা নির্বাচিত করা হয়।

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment